Search
You Have Notification
Home » Category » Life Story
অতৃপ্ত ভালবাসার পরিতৃপ্ত কাহিনি Posted by , 1 year ago, 103 Views
→এই ছেলে শোনো তো.. →জ্বি, আমাকে বলছেন? →আপনি ছাড়া তো আর কোন ছেলে নেই..তাইনা? →ওহ..অন্য ছেলে আসলে তাকে ডাকতেন? →ধুর..আপনার দরকার তাই ডেকেছি। বুঝেছ??? →আমি তো আপনাকে চিনি না.. তুমি করে বলছেন যে? →গাধা আমি মৌ, তোমার সাথে একই ইয়ারে একই ক্লাসে পড়ছি। দেখো নাই কোনদিন?? →গালি দিবেন না। আর আমি কি আপনার নাম জানতে চাইছি?? কি দরকার সেটা বলেন। →কিচ্ছু দরকার নাই। যাও… →তাহলে থামাইলেন ক্যান?? →ইসস..৩ মিনিট কথা বললাম তাতেই এমন। কোথাকার আমার ফাটাকেষ্ট রে..দেশের কাজে late হয়ে গেল..হিহি হি… বাই (১)যত্তসব ফালতু মেয়ে কোথাকার। ধুর, মেজাজটাই খারাপ করে দিল। আসলে আজকালকার মেয়েরাই এমন….. ভাবতে ভাবতে কলেজ থেকে বাসায় ফিরছিল শাওন। কোথা থেকে যে মেয়েটা উদয় হল আবার আজগুবি কথা বলে চলে গেল। পাগল মেয়ে মনে হয়।।। (২)কি ছেলেরে বাবা..!! রস-কস কিচ্ছু নেই। কিছু বোঝেও না। পুরাই পাগল ছেলে। আমাকে নাকি চেনেনা!! অথচ ২ বছর হতেও চলল তার সাথে পড়ছি।। আচ্ছা মিম তুই বল এমন কোন ছেলে হয়?? মিম: কি জানি বাবা..!! ছেলেটা সবার থেকে আলাদা। একাই আসে,একা একা ক্লাস করে আবার চলে যায়…যেন একটা রোবট। মৌ: জানিস, ওর চোখ দুইটা খুব সুন্দর রে.. মিম: বলিস কি!! তুই ওই রোবটটাকে ফলো করিস?? ব্যাপার কি? মৌ: কই কিছু না। মিম: কিছু না মানে??? আমাকে তো কখনো এসব বলিস না। আর এখন একটা ছেলের সমপর্কে এসব রোমান্টিক কথা বলছিস..তারমানে? ? মৌ: ধুর, উল্টাপাল্টা বলিস নাতো। আমি মাঝে মাঝে অবাক হই জানিস.. ও একাই আসে ক্লাস করে.. সব সময় একা থাকে। কেন? কিসের এত কষ্ট ওর?? মিম: এতই যখন জানার ইচ্ছা ওকে বিয়া করে ফেল..!! মৌ : বুদ্ধিটা মন্দ না…কি বলিস??? মিম: ওহো… জল গরিয়ে এত দুর…?আর আমি কিচ্ছু জানি না। বল কতদিন হল? মৌ: এইত কিছুদিন রে…বাসা এসে গেল পড়ে সব বলব.. বাই পরের দিন কলেজে… (৩)মৌ :কেমন আছো? শাওন : আপনি আমাকে ডিস্টার্ব দেন কেন? মৌ: আজব ছেলে তো! আমি কি তোমাকে টিজ করছি? এত ভাব দেখাও কেন তুমি? কিসের এত অহংকার তোমার? শাওন আর কোন কথা না বাড়িয়ে চলে গেল। মিম:এতদিন দেখলাম ছেলেরা তোর পিছে ঘুরে আর আজ দেখছি তুই একটা ছেলের পিছনে!!! হি হি হি…মজা পাইলাম দোস.. লেগে থাক মৌ: কিসের এত দেমাগ ওর?? বোঝে না আমি ওকে ভালবাসি? নাকি বুঝেও না বোঝার ভান করে? মিম: কি জানি?? চল ক্লাসে যাই (৪) →হ্যালো, মিম →হুম, বল →দোস, আমাকে ওই রোবট শাওনের নাম্বারটা জোগার করে দেনা →আমি, কি করে? →তোর bf কে বল যদি পারে..? →আচ্ছা..এখন রাখি। →ওকে (৫) উফফ…. পাক্কা ৩ ঘন্টা সার্চ করে ণাম্বারটা পেলাম। কল দিব? না ম্যাসেজ দিই। । । । ফোনে মেসেজ টোন টা বেজে উঠল। অনেকদিন হল ম্যাসেজ দেয়না কেউ।। ২ বছর আগেই ত সে অন্য শাওন ছিল। আর এখন.. ম্যাসেজ টা ওপেন করে দেখে hi লেখা…না পরিচিত কারো নাম্বার নয়..তাহলে কে?? কল দিব? দিয়েই দেখি….. শাওন :হ্যালো… ওপাশে শুধু নিরবতা…কারো জোড়ে নিশ্বাস পড়ার শব্দ হচ্ছে কি হল…কে আপনি? কথা বলুন… হ্যালো… এইযে কে আপনি? ধুর… কলটা কেটে দিল শাওন। পড়ার সময় এমন ডিস্টার্ব ভাল্লাগে না। একটু পর আবার ম্যাসেজ.. আমি… →কে আপনি?? →চিনলেন না?? →না →ভালো করে খেয়াল করেন ডিস্টার্ব দেন কেন? →আমার ইচ্ছা →আপনার ইচ্ছা আপনার ব্যাপার…… কিন্তু আমার সাথে কেন? →cause.. i →what? →বলব না →don’t disturb me… and don’t send sms again আহ.কে এভাবে জ্বালাচ্ছে..? ওই মেয়েটা নাকি? কি যেন নাম…..মৌ।। ধুর..ও আমার নাম্বার কোথায় পাবে..? যতসব আজগুবি চিন্তা…. হায় আল্লাহ… এই ছেলের কি মন নেই? বোঝেনা আমি মৌ.. ধুর…কোনদিন যে ওর সাথে প্রেম হবে.. এভাবেই প্রায় সময় শাওন কে জ্বালাত মৌ….. কলেজেও অনেকবার কাছে গিয়ে কথা বলতে চাইত কিন্তু শাওন পাত্তা দিত না। সবসময় ও মৌকে এড়িয়ে চলত…।।। অবশেষে বিরহ জ্বালা সইতে না পেরে কলেজে সবার সামনে শাওন কে বলেই দিল মনের কথা। আর শাওন….. মৌঃ i love u শাওনঃ আপনি আমার সমপর্কে জানেন? মৌঃ না শাওনঃ আপনি যা ভাবছেন তা অসম্ভব। মৌ: কিন্তু কেন? শাওন :আপনি আমার সমপর্কে জানেন না। তাই….আর প্লিজ আমার সামনে না আসলে খুশি হব। আমি একা.. একাই থাকব মৌঃ কিসের এত অহংকার তোমার… একটা মেয়ে হয়ে দিনের পর দিন তোমার পিছে ঘুরেছি..অথচ তুমি?? কেন এত ভাব দেখাও? আমি কি সুন্দর নই?? এত স্বার্থপর কেন তুমি? অবশেষে সহ্য করতে না পেরে মৌকে একটা চড় দেয় শাওন। তারপর শাওন : sorry…আমি আঘাত করতে চাইনি। তুমি সুন্দর নও কে বলেছে? তুমি আসলেই সুন্দর। আমারো তোমাকে ভাল লাগে কিন্তু আমার জীবনের সাথে কারো জীবন জড়িয়েছে অনেক আগে..তাই আমি পারলাম না….. sorry মৌ : কে সেই মেয়ে যাকে তুমি এত ভালবাসো যে আমাকেও না করলে.. শাওন : থাক না…ভাল থেকো… মৌ: না…আমি না শুনে যাব না কোথাও। সব বল… শাওন : বলছি ত অনেক কথা…. বাদ দাও মৌ : আমি তাও শুনব। বল.. নাম কি ওর…?? শাওন : পরে কোনদিন বলব…বাই (৬) মৌ : আজকে সব বলতে হবে আমাকে। সত্যি করে বল কে সেই মেয়ে? শাওন : বলে কি লাভ…শুধু কষ্ট গুলো খুজে বের করা। মৌ :আমি তাও শুনব। শাওন : তাহলে শর্ত দাও আমাকে আর জ্বালাবে না? মৌ : দেখা যাবে। নাম কি? শাওন :মাইশা মৌ : কোথায় থাকে? শাওন : ওপারে.. মৌ : মানে??? শাওন : ও আর এ পৃথিবীতে নেই। মৌ : কি বলছ এসব? শাওন : এটাই সত্যি….৩ বছর আগের কথা তখন আমি ইন্টার ফাস্ট ইয়ারে পড়ি। প্রতিদিন নতুন নতুন মেয়ের প্রেমে পড়তাম।আবার ভুলে যেতাম। কলেজে গিয়ে একদিন ওভাবেই হঠাৎ মাইশাকে দেখলাম। ওকেও ভাল লাগল। কিন্তু এই ভাললাগার সাথে অন্যদের মিল খুজে পাইনি। ওর সব কিছুই আমার ভাল লাগত। হাটা-চলা-কথা বলা সব। দ্রুতই বন্ধুমহলে ওর প্রতি আমার দুর্বলতা প্রকাশ পেয়ে গেল। ওওও হয়ত কিছুটা বুঝেছিল তাই প্রথমবার বলাতেই রাজি হয়ে যায়। ব্যস আমার নতুন জিবন শুরু। আমি খুব দুষ্ট আর অবাধ্য ছিলাম। কিন্তু ওর শাসনে ১ মাসেই ভদ্র ছেলেদের খাতায় নাম লেখাই। এভাবেই পুরো দুই বছর প্রেম করি ওর সাথে। HSC পরিক্ষার আগে একবার ও গুরুতর অসুস্থ হয়।ওর গলায় টিউমার ধরা পরে।ডাক্তার অপারেশন করতে বলেছিল। ওর বাবা তাই করান। আর ওপরীক্ষা দেয়নি। ফলে আমি ওর চেয়ে বয়সে ১ বছর বড় হয়ে যাই। ডাক্তার বলেছিল বাচার চাঞ্চ ৫০-৫০। তবুও ওর বাবা রিস্ক নেন। ওর টেনশনে আমার কিছ পরিক্ষা খারাপ হয়। তবে রেসাল্ট ফেল আসবে না। যেদিন ওর অপারেশন হয় অনেক দুঃচিন্তায় ছিলাম। কিন্তু আল্লাহ রহমত করেন। ওর operation successful হয়। ক্লিনিকে ওকে ১ মাস রাখা প্রত্যেকদিন দেখতে যেতাম। কিন্তু ওকে যেদিন বাসায় নিয়ে আসা হয় সেদিনই ওকে হারিয়ে ফেলি। জানো… ওকে যখন রিক্সায় করে বাসায় আনছিল আমি ওর সাথেই বসে ছিলাম। এসময় মেইন রোডে একটা ট্রাক খুব জোড়ে আসতেছিল। হঠাৎ করে ট্রাকটি আমাদের সোজায় আসতে শুরু করে। আর সেটা দেখে রিক্সাওয়ালা ঝাপ দিয়ে নেমে পড়ে কিন্তু রিক্সা সাড়াতে ভুলে যায়। আর মাইশা (!)…ও আমাকে খুব জোড়ে একটা ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়..তারপর আমার মাইশা রিক্সা থেকে নামতে পারেনি রাস্তায় ওর রক্তাক্ত নিথর অথচ পবিত্র দেহটা পড়ে ছিল।আমি কিছুই করতে পারিনি । অননেক কেঁদেছিলাম। কিন্তু লাভ হয়নি।উপরওয়ালা ওকে ফিরিয়ে দিয়েও কেড়ে নিয়ে গেলেন….. বাই….. চোখ দিয়ে পানি ঝরছে মৌয়ের। কিসের জন্য? হয়ত এরকম একটা ছেলেকে ভালবেসে না পাওয়ার অথবা তৃপ্তিহীন এক অতৃপ্ত ভালবাসায় নিজের ভালবাসাকে অতৃপ্ত হতে দেখার…..
Related Post
  1. › hi
  2. › বাসায় যখন বিয়ের কথা চলে
  3. › আজ মেয়ে দেখতে আসবার পর মেয়েকে আর আমাকে যখন আলাদা করে ছাদে পাঠানো হলো কথা বলার জন্য
  4. › টক মিষ্টি ঝাল ঝাল ভালোবাসার গল্প
  5. › বাসার ছাদ থেকে ঢাকা শহর টা বেশ সুন্দরই লাগছে

1 responses to “অতৃপ্ত ভালবাসার পরিতৃপ্ত কাহিনি”

Leave a Reply

Topics

Blogroll